Previous
Next
আসুন মরহুম মাওলানা ওয়ালিউল্লাহ'র পরিবারের পাশে দাঁড়াই

আসুন মরহুম মাওলানা ওয়ালিউল্লাহ'র পরিবারের পাশে দাঁড়াই

কানাইঘাট মনসুরিয়া কামিল মাদরাসা এর অফিস সহকারী ও হিফজ শাখার প্রাক্তন শিক্ষক বিশিষ্ট আলেমেদ্বীন,হাফিজে কোরআন, হাফিজ মাওলানা ওয়ালিউল্লাহ আমাদের সবাইকে কাঁদিয়ে চলে গেলেন 

মহান মাবুদের ডাকে সাড়া দিয়ে ওপারের সুন্দর ভুবনে। তিনি আর কোনদিন ফিরে আসবেন না। আমরা ইচ্ছা করলেও আমরা আর কখনো দেখতে পাবনা। 

তিনি চলে গেছেন,রেখে গেছেন শুধু স্মৃতি।

গতকাল বাদআসর তিনির জানাজার নামাজ শেষ হলো।জানাজায় ছিল হাজার হাজার মানুষের উপচে পড়া ভীড়।সবাই ছিল অশ্রুসিক্ত।সকলের মুখে ছিল একই কথা, হাফিজ ওয়ালিউল্লাহ এত সকাল চলে গেলেন!কি আর করার আছে? সবাইকে তো একদিন যেতে হবে এভাবেই মনিবের দরবারে।হাফিজ ওয়ালি উল্লাহ ও জনাব আব্দুল হাফিজ চাচার জানাজায় ঈমামতি করেন বিশিষ্ট আলেম,সাবেক সংসদ সদস্য প্রিন্সিপাল মাওলানা ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী।দলমত নির্বিশেষে সকল দলের নেতা কর্মী,শিক্ষক,সাংবাদিকসহ সর্বস্তরের মানুষ এই জানাজায় অংশ নেন। 

অত্যন্ত হাস্যোজ্জ্বল, মিষ্টভাষী,সদালাপী,বিনয়ী,নম্র ভদ্র স্বভাবের মানুষ ছিলেন তিনি।আমি দীর্ঘ পনের বছর চাকুরী করেছি উনার সাথে।কোনদিনও মুখ কালো করে বা কড়া মেজাজে কথা বলেননি। সবসময় আমাকে ডাকতেন ধর্মপুরের স্যার বলে।খুব সুন্দর সুন্দর খাঁটি বাংলা শব্দের ব্যবহার মাঝে মাঝে শুনাযেত তিনির মুখে।হেসে হেসে কথা বলতেন সবসময়।আমরা আর ওয়ালিউল্লাহ হুজুরের এমন মিস্টিমুখের কথা আর শুনতে পাবনা কোন দিন।পারিবারিক দিকে তিনি পাঁচ মেয়ে ও এক সন্তানের পিতা ছিলেন।দুই মেয়ে বিবাহিত। সবচেয়ে ছোট ছবিতে দেখাযাচ্ছে যে ছেলেটি উনার কোলে সে ই উনার একমাত্র ছেলে। এদের নেই কোন মাথা গোজার ঠাই।তিনি ভিটাবাড়ীসহ সব হারিয়ে থাকতেন পরিবার পরিজন নিয়ে একটি ভাড়া বাসায়।এখন এই বাসা ভাড়া দেয়ার কেউ নেই।নেই ছেলে সন্তানদের থাকার মতো কোন বাড়ী।নেই খাওয়া পরার কোন ব্যবস্থা।খুবই অসহায় হয়ে পড়েছে পরিবারটি।গতকাল জানাজার সময় উনার  অসহায় পরিবারের জন্য কিছু চাঁদা কালেকশন করা হয়েছে।তাও একেবারে সামান্য।উনার স্বপ্ন ছিল ছেলেকে পিল্লাকান্দি হুজুর(র.)এর মতো একজন বড় আলেম বানবেন।কিন্তু স্বপ্নতো স্বপ্নই রয়ে গেল।চলে গেলেন তিনি।আমরা কি কেউ পারিনা এই ছেলেটির পড়ালেখার দায়িত্বভার নিতে।নেইকি কোন ভাই উনার স্বপ্ন পূরণে এগিয়ে আসার মতো।কেউ কি পারিনা এই অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়াতে।তাদের প্রয়োজন একখন্ড জমির উপর বসবাসের উপযোগী একটি ঘর। প্রয়োজন খাওয়া পরা,পড়ালেখার সুব্যবস্থা। মরহুম আব্দুর রব ক্বাসিমী পিল্লাকান্দি হুজুর(র) এর উত্তর সূরী, উনার দরদী,উনাকে ভালবাসেন এমন যারা আছেন বা মরহুম  হাফিজ ওয়ালিউল্লাহ সাহেবের হিতাকাঙ্কী যারা আছেন, আপনাদের প্রতি এবং এলাকার বিত্তবানদের প্রতি আমার আকুল আবেদন  মেহেরবানী করে এই অসহায় পরিবারটির প্রতি আপনাদের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিন
আল্লাহ আমাদের সবাইকে তওফিক দান করুন।আমিন।।সবাই বিষয়টি নিয়ে একটু চিন্তা করুন,চেষ্টাকরুন,আলাপ আলোচনা করুন,একটিবার ভাবুন এই অসহায় পরিবারটি নিয়ে,এই আবদার সবার কাছে রইল।

লেখক:  এনামুল হক, সাবেক সাধারণ সম্পাদক কানাইঘাট প্রেসক্লাব।